Tamim Ahmed-
Tamim Ahmed
Freelancing
4 Nov 2021 (6 months ago)
Araihazar, Narayanganj, Dhaka, Bangladesh
কিভাবে ব্লগ সাইট বানিয়ে রয়েল আর্নিং শুরু করবেন। এবং ব্লগিং করে মাসে কত টাকা আয় করতে পারবেন?

এটা আপনার শুরু করা উচিত হবে কিনা, এটা শুরু করলে আপনি কি কি শিখতে পারবেন, এবং ব্লগিং ক্যারিয়ার আপনার লাইফে কি পরিমান ভ্যালু অ্যাড করতে পারে। তা নিয়ে আজকে আলোচনা করব।

ব্লগিং ক্যারিয়ার শুরু করার অন্যতম একটি কারণ হচ্ছে রয়েলটি আর্নিং। যেকোনো কিছুই আপনি লাইফে করেন না কেন আপনার লার্নিং সোর্সের প্রয়োজন। অন্যথায় আপনি সেই ক্যারিয়ারে টিকে থাকতে পারবেন না।

আপনার অবশ্যই একটি লার্নিং সোর্স থাকতে হবে যেন আপনার পরিশ্রম থেকে আপনি একটা বেস্ট রেজাল্ট নিতে পারেন। ব্লগিং এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের অনেক দারুন একটি সুবিধা হচ্ছে এটা থেকে রয়ালটি আর্নিং করা যায়। রয়ালটি আর্নিং বলতে বোঝায় আপনি একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত কাজ করবেন এবং তার পরবর্তীতে আপনি লংটাইম কাজ অফ রাখলেও আপনার আর্নিং টা অফ থাকবে না। এটা কন্টিনিউ চলতে থাকবে।

এটাকের ওয়ার্মিং মডেল বলা হয় বিশেষ করে যারা লেখক। বিভিন্ন বই লেখে তারা রয়ালটি আর্নিং করে থাকে। এছাড়াও যারা বিভিন্ন প্রোডাক্ট ডেভলপার মাধ্যমে যারা বিভিন্ন প্রোডাক্ট তৈরি করতে পারে তারা এই ধরনের আর্নিং করে থাকে।

সচরাচর আমরা আমাদের আশেপাশে এই ধরনের মানুষ গুলোকে খুব কম দেখে থাকি। যারা রয়ালটি আর্নিং করে থাকে।

যার জন্য এই বিষয়টা সম্পর্কে আমাদের অনেকেরই ধারণা কম। যার জন্য ব্লগিং এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের এটা অনেক বড় একটা সুবিধা। আপনিও রয়েলটি আর্নিং ডেভলপার করতে পারবেন ব্লগিং এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার মাধ্যমে।

একজন লেখক যখন একটা বই লেখে। সেটা যতবারই সেল হয় প্রত্যেক লেখক একটা আর্নিং পায় এবং আল্লাহ না করুক যদি সে কখনো মারা যায় তারপরও কিন্তু তার আর্নিং টা থেমে থাকে না। তার মারা যাওয়ার পরেও সেই বইগুলো সেল হতে থাকে এবং সে তার ফ্যামিলি পরিবার সেটা থেকে রয়ালটি আর্নিং পেতে থাকে।

এই ধরনের আর্নিং গুলোকে বলা হয় রয়ালটি আর্নিং। আমি শুধু একটা এক্সাম্পল দিলাম লেখকদেরকে দিয়ে।
ব্লগে লেখালেখির কাজ এখানে আপনি বিভিন্ন বিষয়ের উপরে লেখালেখি করতে পারেন।

বই হচ্ছে একটা আল্টিমেট প্রোডাক্ট। যেটা সবাই লিখতে পারে না। কিন্তু ব্লগ যে কারো পক্ষে করা সম্ভব। এর জন্য আপনার একটা ওয়েবসাইটের প্রয়োজন। ওয়েবসাইটে আপনার যে বিষয়গুলোতে ইন্টারেস্ট এবং অভিজ্ঞতা আছে। আপনার যে বিষয়গুলো ভালো লাগে। সে বিষয়গুলো মধ্যে আপনি যেকোনো টপিক নিয়ে লেখালেখি শুরু করে দিতে পারেন।

আপনার লেখাটি পাবলিশ করার জন্য আপনাকে কারো কাছে অনুমতি নিতে হচ্ছেনা। কারো জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে না। আপনার ওয়েবসাইটে আপনার পছন্দের বিষয়টি লেখালেখি করে যখন খুশি তখন পাবলিশ করে দিতে পারছেন। যেমনটা আমাদের ওয়েবসাইটে আমরা করি।

ফেসবুকের স্ট্যাটাসবারে আপনি যত কিছু লেখেন না কেন সেটা থেকে আপনার কোন ক্যারিয়ার অপরচুনিটি তৈরি হবে না। এইসব আপনি আপনার প্রফেশন হিসেবে নিতে পারেন।

আর ওয়েবসাইট ব্লগিং এটা খুবই স্মার্ট এবং হ্যান্ডসাম একটা ক্যারিয়ার। আপনার নিজের একটি ওয়েবসাইট লাগবে যেখানে আপনার পছন্দের যেকোন বিষয় নিয়ে আপনি লেখালেখি করতে পারবেন।

ওয়েবসাইডে আর্নিং ডেভেলপমেন্ট একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত আপনি যা কাজ করবেন এবং তারপরে আপনি কাজ না করলেও সেখান থেকে রেগুলারলি আর্নিং পেতে থাকবেন। এই বর্তমান সময়ে অনলাইনে ক্যারিয়ারকে মার্কেটিং এবং ব্লগিং ক্যারিয়ার শুরু করার অন্যতম ডিসিশন।

আপনার মেইন দুর্বল কারণ হচ্ছে ইনভেসমেন্ট বিজনেস। অনেকে এসকল কথা শুনলে একটু ঘাবড়ে যায় যে বিজনেসটা আমার পক্ষে করা সম্ভব। অনেকেই ভাবে আমার কাছে তো টাকা নাই এতো ইনভেস্ট করার মত অবস্থা নাই।

এর জন্য আপনাকে বেশি টাকা খরচ করতে হবে না। প্রথমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের জন্য একটি ছোট বিজনেস খুলবেন। বাংলাদেশে অনেক ওয়েব হোস্টিং আছে যার মাধ্যমে আপনি বিকাশ থেকে ওয়েব হোস্টিং কিনতে পারবেন।

আর আপনার যদি ওয়েবসাইট সেটআপের দক্ষতা না থাকে তাহলে আপনি মার্কেটে অনেককেই পেয়ে যাবেন। যারা স্বল্প টাকায় ওয়েবসাইট সেটআপ করে থাকে। আপনি চাইলে আমার সাথে এ বিষয়ে যোগাযোগ করতে পারেন।

ব্লগিং করার জন্য পৃথিবীতে সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি সফটওয়্যার হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস।

আমরা আমাদের অ্যান্ড্রয়েড ফোন গুলো ব্যবহার করে থাকি যেটা অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম মাধ্যমে সচরাচর থাকে। আবার কম্পিউটার জন্য ব্যবহার করি পিসি’র উইন্ডোজ। উইন্ডোজ ও কম্পিউটার একটি অপারেটিং সিস্টেম বা সফটওয়্যার।

তেমনি ওয়েবসাইট অপারেট করার জন্য আলেদা কতগুলো সফটওয়্যার আছে এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস। এটা জনপ্রিয়তা পাওয়ার অন্যতম একটা কারণ হচ্ছে এটা খুবই সহজ ব্যবহার করা যায়।

যেকোনো একজন মানুষ কোন ধরনের কোনো কোডিং দক্ষতা ছাড়াই তার নিজের ওয়েবসাইট সে নিজেই মেন্টেন করতে পারে কোন ধরনের ওয়েব ডেভলপার কোন কম্পিউটার প্রোগ্রামার ছাড়াই।

ওয়েবসাইট তৈরিতে আপনি আপনার ব্লগিং ক্যারিয়ারের জন্য ওয়ার্ডপ্রেস সফটওয়্যার দাঁড়া খুবই সুন্দর ওয়েবসাইট আপনি তৈরি করে ফেলতে পারেন। এবং আপনার সেই ওয়েবসাইটে যে বিষয়টি ভালো লাগে সে বিষয়টি নিয়ে আপনি লেখালেখি করতে পারেন।

একটা ওয়েবসাইট লঞ্চ করার পরে প্রথমেই আপনার বেশি ট্রাফিক আসবে না। আস্তে আস্তে আপনার ওয়েব সাইটের কনটেন্ট যত বাড়বে আপনার ওয়েবসাইটে ততটা ট্রাফিক আসতে শুরু করবে।

প্রথম পাচঁছয় মাস আপনি 100 ডলারের বেশি কামাতে পারবেন না। আবার চেষ্টা করলে আমি আপনি শুরু থেকে অনেক টাকা কামাতে পারবেন। এর জন্য বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অথবা গুগলে আপনার এডস দিতে হবে।

আর আপনি যদি মনে করেন ওয়েবসাইট না খুলে ব্লগিং শুরু করবেন। এর জন্য আপনি বিভিন্ন ওয়েবসাইট দেখে থাকবেন। যারা আপনার ব্লগ লেখার জন্য আপনাকে কিছু নির্দিষ্ট টাকা দিয়ে থাকবে।

আর এই সিস্টেমটি আমাদের সাইটে আছে। অন্যসব ব্লগ ওয়েবসাইট থেকে আলাদা। এই সাইটে আপনি ব্লগ পোস্ট করে আপনার ব্লগে কি পরিমান ভিউ এবং লাইক পেয়েছেন তার বিনিময়ে আমরা বিকাশের মাধ্যমে টাকা দিয়ে থাকি। আপনি চাইলে আমাদের ওয়েবসাইটটি কেউ আপনার ক্যারিয়ার হিসেবে যুক্ত করতে পারেন।

তাহলে ভাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন। প্রতিদিন নতুন নতুন আপডেট পেতে Basics Press এর সাথে থাকুন। ধন্যবাদ সবাইকে

304 Views
No Comments
Forward Messenger
. 18

Craigslist Update News
-
- -
Android Studios Earning Apps
-
- -
Basics Press Notice
1
Technology Updates
10
Electronics
2
Android Programing
16
iOS Programing
2
Computer Programing
13
Wireless Fidelity
4
Hacking tutorials
15
Mobile Networks
3
Videos Programing
5
Movie Review
4
Freelancing
35
Web Development
18
Social Network
23
Politics News
2
Education Guideline
6
Religious Fiction
15
Magic Tricks
3
LifeStyle
17
Uncategorized
40
No comments to “কিভাবে ব্লগ সাইট বানিয়ে রয়েল আর্নিং শুরু করবেন। এবং ব্লগিং করে মাসে কত টাকা আয় করতে পারবেন?”