Tamim Ahmed-
Tamim Ahmed
Technology Updates
13 Mar 2022 (2 months ago)
Araihazar, Narayanganj, Dhaka, Bangladesh
মোবাইল কিনার আগে কি কি বিষয় দেখে কিনলে বেশিদিন টিকবে বা লাস্টিং করবে?

বর্তমানে মোবাইল নেই এমন লোক পাওয়া মুশকিল। সবার বাসায় অন্তত একটি স্মার্টফোন আছে। স্মার্টফোন অনেক কাজে লাগে, এছাড়া স্মার্টফোন আমাদেরকে অনেক ধরনের সাহায্য করে। বর্তমান বাজারে অনেক ধরনের স্মার্টফোন আছে। কিছু ভালো, কিছু আবার খারাপ।

আপনার চাহিদা অনুযায়ী স্মার্টফোনের বাজেট নির্ধারিত হয়। আপনার বাজেট যেরকম হবে ঠিক তেমন ফোন আপনি পাবেন। তবুও স্মার্টফোন কেনার আগে কিছু বিষয় জেনে নেয়া উচিত। তাহলে চলুন সেগুলো জেনে নেই…

স্ক্রিন ও ডিসপ্লে:

মোবাইল ফোন কেনার আগে অবশ্যই সেটা স্ক্রিন এবং ডিসপ্লের উপর নজর দেওয়া খুবই জরুরী। এছাড়া আপনার মোবাইলের ডিসপ্লে সাইজ কত সেটা দেখবেন। কারন অনেকেই ছোট ডিসপ্লে পছন্দ করে, আবার অনেকের বড় ডিসপ্লে পছন্দ করে।

এছাড়া ডিসপ্লে কোয়ালিটি কেমন? Full HD, নাকি HD, HD+ সেটাও খেয়াল করবেন। লো কোয়ালিটির ডিসপ্লে নিলে, সেটার ভিডিও এবং ইমেজ দেখতে খারাপ লাগবে। তাই চেষ্টা করবেন ফুল এইচডি ডিসপ্লে নেওয়ার জন্য।

এছাড়া আপনার ডিসপ্লে, AMOLED (এমোলেড) নাকি LCD (এলসিডি) সেটাও দেখবেন। কারণ এলসিডি ডিসপ্লের তুলনায় এমোলেড ডিসপ্লে কোয়ালিটি অনেক ভালো।

ব্যাটারি ব্যাকআপ:

আপনার মোবাইলের ব্যাটারি ব্যাকআপ কেমন সেটা অবশ্যই জরুরি। বর্তমানে 5000mah ব্যাটারি বহু প্রচলিত। আপনি আপনার বাজেট অনুযায়ী এর থেকে বেশি ব্যাটারি ব্যাকআপ এর মোবাইল ও পেয়ে যাবেন।

ব্যাটারি ব্যাকআপ খারাপ হলে কিন্তু আপনার মোবাইলে বেশিক্ষণ চার্জ থাকবে না।

মোবাইলের র‍্যাম:

মোবাইলের র‍্যাম কিন্তু অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি বেশি মাল্টিটাস্কিং করেন, সেক্ষেত্রে অন্তত ৪ জিবি র্যামের মোবাইল নেবেন। আর যদি গেমিং করেন সেক্ষেত্রে অন্তত ৬ থেকে ৮ জিবি র্যাম নিবেন।

যদি সাধারন ইউজার হন, তাহলে ৩ জিবি র‍্যাম হলেই চলবে।

ইন্টার্নাল ইস্টোর বা মোবাইলের মেমোরি:

আপনার মোবাইলের মেমোরি যদি বেশি হয়, তাহলে আপনি আপনার মোবাইলে বেশি ফাইল রাখতে পারবেন। আপনার মোবাইলে অন্তত ৬৪ জিবি ইন্টার্নাল স্টোর থাকলে ভালো হয়।

তবে আপনি যদি ভারী কোনো কাজ (যেমন: গেমিং) করেন, তাহলে আপনার মেমোরি পরিমাণ আরও বৃদ্ধি করতে হবে। এতে করে গেমিং পারফরমেন্স অনেক ভালো হবে।

মোবাইলের প্রসেসর (CPU):

একটি মোবাইলের প্রসেসর এর উপরে নির্ভর করে সেই মোবাইলের পারফরম্যান্স। তাই সব সময় ভালো কোয়ালিটি প্রসেসরের মোবাইল নেওয়ার চেষ্টা করবেন। বর্তমানে স্ন্যাপড্রাগন ও মিডিয়াটেক এর প্রসেসর গুলো অনেক জনপ্রিয়।

প্রসেসরটি মূলত নির্ভর করবে আপনার বাজেট অনুযায়ী।

মোবাইলের GPU:

সব সময় চেষ্টা করবেন ভালো কোয়ালিটির GPU ব্যবহার করতে। বর্তমানে অ্যাড্রিনো ৬৬০,৬৫০,৬৪০ ; ম্যালি জি৭৮,৭৭,৭৬ GPU গুলো ভালো কোয়ালিটির।

GPU আপনার কনটেন্ট কোয়ালিটি এবং গেমিং কোয়ালিটির উপর অনেক বড় ধরনের এফেক্ট ফেলে। ভালো কোয়ালিটির GPU ব্যবহার করলে আপনার মোবাইলের কনটেন্ট ও গেমিং পারফরমেন্স ভাল পাবেন।

মোবাইলের ক্যামেরা:

আপনি যদি ছবি তুলতে ভালোবাসেন, তাহলে আপনার মোবাইলের ক্যামেরা অবশ্যই ভালো হতে হবে।

মোবাইলের ক্যামেরার মেগাপিক্সেল এর থেকেও ক্যামেরার কোয়ালিটি কেমন, সেটার উপর বেশি গুরুত্ব দেবেন।

মোবাইলের ডিজাইন ও সাইজ:

একটা মোবাইলের ডিজাইন যদি খারাপ হয়, সেক্ষেত্রে সেটা দেখতেও সুন্দর লাগে। বর্তমানে আমাদের দেশে কম দামে অনেক প্রিমিয়াম কোয়ালিটির ডিজাইনের মোবাইল পাওয়া যায়। তাই মোবাইলের ডিজাইনের উপর বেশি নজর দিবেন।

মোবাইলের সাইজ সম্পর্কে আমি আগেই বলেছি। আবার বলে রাখি, অনেকেই ছোট মোবাইল পছন্দ করে, আবার অনেকেই বড় মোবাইল পছন্দ করে। তাই মোবাইলের সাইজটা যার যার নিজের পছন্দের উপর নির্ভর করে।

মোবাইলের ব্র্যান্ড:

একটা মোবাইল কোন কোম্পানি থেকে তৈরি হয়েছে সেটা অনেক বেশি গুরুত্ব বহন করে। আপনি যদি একটি নামি দামী কোম্পানির মোবাইল কিনেন, সেক্ষেত্রে সেই মোবাইলের কোয়ালিটি হবে ভালো। কারণ নামিদামি কোন কোম্পানি তাদের প্রোডাক্ট এর কোয়ালিটি কখনোই খারাপ করতে চায় না।

অন্যদিকে আপনি যদি অন্য কোন কোম্পানির মোবাইল কিনেন সেক্ষেত্রে সেটা খারাপ হতে পারে। মোবাইলের কোয়ালিটিও ভালো নাও হতে পারে। (আমি কোন ব্র্যান্ডের নাম উল্লেখ করছি না)

মোবাইলের অপারেটিং সিস্টেম:

সব সময় চেষ্টা করবেন সর্বশেষ অপারেটিং সিস্টেমের মোবাইলটি নেওয়ার জন্য। আপনি যদি এন্ড্রয়েড ভালোবাসেন সে ক্ষেত্রে অ্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ সংরক্ষণ (অ্যান্ড্রয়েড ১২) নিতে পারেন। আর যদি আইফোনের ইউজার হন সেক্ষেত্রে (ios 14) অপারেটিং সিস্টেম নিতে পারেন।

তবে ভালো ব্র্যান্ডের মোবাইল এর ক্ষেত্রে আপনি নতুন অ্যান্ড্রয়েড এর আপডেট পেয়ে যাবেন।

বাজেট:

উপরের যতগুলো অপশনের কথা বললাম, এগুলো সম্পূর্ণ অপশনই আপনার বাজেটের উপর নির্ভর করবে। আপনার বাজেট যদি বেশি হয় সেক্ষেত্রে আপনি ভাল কোয়ালিটির মোবাইল নিতে পারবেন।

মোবাইল কিনার আগে অবশ্যই সেই মোবাইলের দাম অনলাইনে দেখে নিবেন।

তবে মনে রাখবেন, কেউ যদি কম বাজেটে আপনাকে বেশি কিছু দেয়, যেটা দেওয়ার কথা না। তাহলে বুঝবেন সেই জিনিসের মধ্যে কোন ঝামেলা আছে।

আশা করি সবাই বুঝতে পেরেছেন। সবাই ভাল থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

97 Views
No Comments
Forward Messenger
. 25

Basics Press Notice
1
Technology Updates
10
Electronics
2
Android Programing
16
iOS Programing
2
Computer Programing
13
Wireless Fidelity
4
Hacking tutorials
15
Mobile Networks
3
Videos Programing
5
Movie Review
4
Freelancing
35
Web Development
18
Social Network
23
Politics News
2
Education Guideline
6
Religious Fiction
15
Magic Tricks
3
LifeStyle
17
Uncategorized
40
No comments to “মোবাইল কিনার আগে কি কি বিষয় দেখে কিনলে বেশিদিন টিকবে বা লাস্টিং করবে?”